Memory

Mother Helped Me to Text

আজকে কি মনে করে জানি Alex (Alaexndra Artourovna Yatchenko, professionally Sasha Sloan নামে পরিচিত যদিও কিছুদিন পর Sasha Alex Sloan হিসেবে পরিচিত হবে, নাম পাল্টানোর ধান্দায় আছে।) -এর সাথে twitter-এর পুরোনো conversations দেখতেছিলাম। একটা জিনিস বিশেষভাবে চোখে পড়লো।

তার আগে prelude: ২০১৫-র শেষের দিকের কথা। তখন বলতে গেলে একদম free সময় pass করতেছি। at that time Berkeley Music Program-এ একটা course করতেছিলাম। Online course আর আমি চ-রকমের (চরম রকমের, আমার ছোটভাই বলে সংক্ষেপে) উদাসিন টাইপের, ১ দিন থাকতাম তো ২ দিন থাকতাম না। তবে mate সবার সাথেই একটা cool সম্পর্ক হয়ে যায় B-) । সেখান থেকে বেশি কিছু so called musical friend পেয়েছি। তো course টা ছিলো পুর ১ বছরের মতো। একটা সময়, আমরা বড় ফুপির ওখানে গিয়েছিলাম, ঘুড়তে আর একটা program-এ। তো HFDT এর সেই program-এ মিট হয় Sasha Slone এর সাথে। অনেক senior (ক্লাসে না, সে সেখানে HFTD থেকে গেছিলো not Berkeley থেকে) বাট সেই জমে গেছিলো, পুরাই cool dude. আমি যেহেতু in person গিয়েছিলাম, তো সেজন্য সবার সাথেই বেশ interactive সময় যাচ্ছিলো as we know us, first meet with my mates, I used to be the centered person on class time, could draw attention easily and I was the only Asian, রোস্টও করতো :-\ । সেখানে senior অনেকের সাথে meet হলো। তো দ্রুতই বেশ cool একটা সম্পর্ক তৈরি হয়ে গেলো যেটা অসলে online এ সম্ভব না, যেহেতু আমার সিনিয়রদেরই চিনি না। Actually ওখানে আমাদের কাজ ছিলো HFDT এর program-এ session করে সেটাতে যা আসবে পুরোটা fund যাবে HFDT এর বহরে; present and for the whole future. আমি HFDT এর সাথে মোটামুটি আগে থেকেই যুক্ত ছিলাম as y’all might know. তো সেখানে আবার বেশ advantage ছিলো। ওদের একটা প্যানেল হলেও, আমার ২টা প্যানেলে VIP access ছিলো। তো মেইনলি Sasha Slone এর সাথে তখনই পরিচয়। এদিকে প্রায়ই কথা হতো। Sasha-র অনেক wrting session-ও আমি থাকতাম, মেইনলি মজা নেয়ার জন্য। মিউজিক নিয়ে সিরিয়াসনেস আসতো না। আবার দেখা যেতো আমি সেখানের সবচেয়ে জুনিয়র, তো সবাই as always বেশ আদর করতো। বাচ্চামিটা থেকেই যেতো, এখনও আছে মনে হয়। তো যাইহক, প্রিলুড শেষ, বোঝার জন্য এটুকুই এনাফ।

২০১৬ এর দিকে আমি আর আম্মি গল্প করতেছিলাম। তখন আমার ফোনের নোটিফিকেশন সাউন্ড অন থাকতো। তো নোটিফিকেশন সাউন্ড পেয়ে ফোনটা নিলাম, দেখি (alex) Sasha-র মেসেজ। ‘হায়’ বলেছে। আমি তো ভাড়ামি করি। তো সেরকমই রিপ্লাই দিলাম। Sasha-ও জোক করতো। কিন্তু সেদিন Sasha পুরা অন্য মেসেজ দিলো (ss দিলাম নিচে)।

২, বাকটা থাকলো

আমার মনে হলো কিছু হয়েছে। btw, she’s different, she stays sad and down often. but that day was slightly different. আমি বুঝতেছি যে ব্যাপারটা অন্যরকম, সরি বলা ছাড়া কিছু খুঁজে পাচ্ছিলাম না। আম্মিকে দেখাইলাম। দেন আম্মি আমাকে হেল্প করলো। মোমেন্ট টা ডেসক্রাইব করতে পারতেছিনা। কিন্তু সিরিয়াসলি অনেক স্যুইট মোমেন্ট ছিলো। তো আম্মির হেল্প নিয়ে রিপ্লাই দিলাম। কিন্তু Sasha-র রিপ্লাই নাই। মনে হলো কান্না করতেছিলো। though she always did, as she’s THE sad girl, she really is. even his social username. তারপর আম্মি বললো, “Sasha তো মিউজিক করে, ওকে বল যে let’s write a song. তাহলে দেখবি হয়তো কিছুটা মুড চেঞ্জ করা যাবে” তারপর আমি টেক্স করলাম, “let’s write a song” কিছুক্ষণ পর রিপ্লাই দিলো, “Thanks man, i owe you one. talk to you later” তারপর আমি “okay” রিপ্লাই দিলাম। পরের দিন snapchat এ লিটারেলি ২ ঘন্টা কথা হলো। তারপর একটা সং রাইটিং সেশনে skype -এ থাকতে বললো যেখানে Jonnali, Clayton (from the duo ODESZA) এর মতো রাইটারও থাকবে! কিন্তু পরে থাকতে পারিনি যদিও কোনো কাজে হবে হয়তো, আখবা অলসতা। কিন্তু guess what… ওর আর আমাদের কনভাসেশন নিয়ে গানের chorus….। যদিও বছর দেড়েক পড়ে রিলিজ হয়েছে গানটা।

কেন বলতেছি এগ্লা, কারণ আমি স্পটিফাইকে (আপুর প্লে-লিস্ট, আমি জানিও না কি ছিলো) গান শুনতেছিলাম, হটাৎ করে গানটা আসলো, পরিচিত লাগলো কিন্তু খুঁজে পাচ্ছিলাম না। পরে লিরিক শুনে ২ লাইন গুগল করলাম, তারপর লিরিক দেখে মনে পড়লো। তখন সেই কনভারসেশন প্রায় আধা ঘন্টা স্ক্রোল করে খুঁজে বের করলাম। আম্মিও অনেক বেশি মিস করতেছিলাম, এখনও। কালকে ইদ ছিলো, জীবনের প্রথম ইদ যেটা আম্মিকে বাসায় ছাড়া কাটাইলাম, দিন শেষে গেছিলাম দেখতে আম্মিকে [Thanks to নুপূর, তানিশা & Apu] কিন্তু convicted feel নিয়ে চোখের দিকে তাকাবো কীভাবো? হা হা হা। এগুলা আমার উইকনেসেস। And now I wish somebody said those lines to me now 🙂

লাইফ ইজ সোওও গুড। ইদ মোবারক সবাইকে।

গানটার নাম: “Falls” (feat. Sasha Slone) by ODESZA

https://odesza.lnk.to/ama

Leave a Reply

Your email address will not be published.